Bangabandhu Shishu Kishore Mela

বিএসকেএম রিপোর্ট : ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী পদক্ষেপ হলো ক্যাশলেস বা টাকাবিহীন সমাজ গড়ে তোলা। যাতে পুরো লেনদেন ব্যবস্থাটি ডিজিটাল পদ্ধতিতে করা সম্ভব হয়। এর মাধ্যমে দুর্নীতি ও চুরির ঝুঁকি কমে যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) সজীব ওয়াজেদ জয় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে রেমিটেন্স এর সেবা ‘ব্লেজ’ উদ্বোধনের সময় এ কথা বলেন। ‘ব্লেজ’ নামের এই রেমিটেন্স সেবা চালু করেছে দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক।

এর মাধ্যমে প্রবাসীরা ৫ সেকেন্ডে তাদের টাকা বিদেশ থেকে দেশে আনতে পারবেন। সেবাটির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

অনুষ্ঠানে জয় বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে যখন রাত, তখন বাংলাদেশে দিন। ফলে যার এখনই টাকার দরকার সে কিন্তু টাকা পাচ্ছে না। তাকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে এক থেকে দুই দিন। কিন্তু ব্লেজের মাধ্যমে কেউ টাকা পাঠালে বাংলাদেশে থাকা ব্যক্তি সাথে সাথেই সেই টাকা পেয়ে যাচ্ছে। এজন্য ব্যাংকে যাওয়ারও দরকার পড়ে না।’
প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বলেন, ‘আমাদের আশা, প্রবাসী যারা আছে তাদের কাছে এই সেবা পৌঁছে দেওয়া। ক্যাশবিহীন এই লেনদেনই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে, এটিই আওয়ামী লীগের ওয়াদা।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সব লেনদেন ক্যাশবিহীন হয়ে যাবে। এটাই ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন। গ্রামের মানুষ থেকে শুরু করে সবার কাছেই মোবাইল ফোনে টাকা চলে যাবে। তারা যখন দোকানে গিয়ে খরচ করবে সেটাও মোবাইলে খরচ করবে। এটাই ডিজিটাল বাংলাদেশের পরবর্তী পদক্ষেপ।’

অনুষ্ঠানের শেষে ব্লেজ এর এই সেবার জন্য আইসিটি বিভাগকে ধন্যবাদ জানান জয়। একইসাথে এই কাজে সহযোগিতা করায় বাংলাদেশ ব্যাংকেও ধন্যবাদ জানান তিনি।

পরে সব ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে এই সার্ভিস তাদের ব্যাংকে যুক্ত করতে অনুরোধ জানান সজীব ওয়াজেদ জয়।

সোনালী ব্যাংক বলছে, এই সেবা চালু হলে প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে ব্যাংকিং চ্যানেলে ডিজিটাল পদ্ধতিতে মাত্র ৫ সেকেন্ডে বাংলাদেশে রেমিটেন্স গ্রহীতার অ্যাকাউন্টে জমা হবে।

জানা যায়, বাংলাদেশে ৩৫টির মতো ব্যাংক ব্লেজ সেবাটি দিতে পারবে। সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা এই সেবা পাওয়া যাবে। সোনালী ব্যাংক, হোমপে ও আইটিসিএল যৌথভাবে এই সেবা চালু করেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *