Bangabandhu Shishu Kishore Mela

বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’র ৩২ ৩ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

—————————————————-

নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ করতে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা কাজ করছে

-সুজিত রায় নন্দী

বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী বলেছেন, আগামী প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। গড়ে তুলতে হবে আগামীর বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু যে বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চেয়েছিলেন। সেই বাংলাদেশের নাম সোনার বাংলা। সেই বাংলাদেশ গড়তে হলে নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ গড়ে তোলার কোন বিকল্প নাই। বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা সেই চেষ্টাই করে যাচ্ছে বত্রিশ বছর ধরে। তাদের ভূমিকা প্রশংসার যোগ্য।

আজ ধানমন্ডির বত্রিশ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর প্রাঙ্গনে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ আয়োজিত ৩২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি একথা বলেন।

ঢাকা মহানগর আয়োজিত এই আলোচনা, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচির  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম। বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় পরিচালক মহীউদ্দিন মানু, সভাপতি মিয়া মনসফ, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মোহাম্মদ।

তিনি বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’র নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আপনারা দীর্ঘ ৩২ বছর এই সংগঠনকে একটি অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন, এই জন্য আপনাদের ধন্যবাদ জানাই। আমি আশা করি, সংগঠনের শৃঙ্খলা বজায় রেখে ঐক্যব্ধভাবে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার অগ্রযাত্রা অক্ষু্ন্ন রাখবেন।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম বলেন, এক দুঃসময়ে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা প্রতিষ্ঠালাভ করেছে যখন বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ পর্যন্ত করা যেতোনা, সেময় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা রাজপথে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছে।

তিনি আরো বলেন, ২০০১ সালে ষড়যন্ত্রের নির্বাচনে জোট সরকার ক্ষমতারোহন হবার পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপর নির্যাতন জুলুম চলতে থাকে। সেসময় স্বাভাবিক কোন দলীয় কার্যক্রম করা যায়নি। ঐ দুঃসময়ে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা ঐতিহাসিক ধানমন্ডির বত্রিশ নাম্বার প্রাঙ্গনকে সাংস্কৃতিক বলয়ে রূপান্তরিত করেছিল। দুঃসময়ের এই সংগঠন আজ ৩২ বছর পেরিয়েছে। বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার এই সাংগঠনিক অভিযাত্রা অত্যন্ত গৌরবের। তিনি এই সংগঠনের সাংগঠনিক শক্রি আরো বৃদ্ধি করার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন এবং সংগঠনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সকল নেতাকর্মীকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।

আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি শিশু কিশোর ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং জাদুঘর প্রাঙ্গনে বৃক্ষরোপন করেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় সভাপতিমন্ডলির সদস্য জাফর আহমেদ ফারুক, যুগ্ম সম্পাদক তাপস রায়, দপ্তর সম্পাদক নজরুল ইসলাম দেলোয়ার, সমাজকল্যাণ সম্পাদক ফারুক ভুঁইয়া, ঢাকা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মানবেন্দ্র, ঢাকা মহানগরের সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি জয় বড়ুয়া, যুগ্ম সম্পাদক সুমি খান।

Leave a Comment

Your email address will not be published.